বিজ্ঞপ্তি:
জাগো বাঙ্গালী টোয়েন্টিফোর ডট কমে আপনাকে স্বাগতম
সংবাদ শিরোনাম :
শেখ আফিল উদ্দিন এমপির উদ্যোগে বেনাপোল গাজীপুর গ্রামে অসহায় ও দুস্থদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ বেনাপোল বন্দর বন্ধ থাকায় বর্ডারে এখন ভূতুরে নীরবতা    বেনাপোল ফ্রেন্ড’স অরগানাইজেশন-৯৮ এর অসহায় দূস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বন্টন বেনাপোলে অসহায়দের খাদ্য বিতরণ করলেন ঢাকাস্থ বেনাপোল সমিতি  একমাত্র ভরসা প্রধানমন্ত্রীর অনুদান, করোনায় শার্শাতে দেখা মেলেনি হেভিওয়েট নেতাদের  উদ্ধার করা মাদক আত্মসাৎ অভিযোগ, ওসিসহ পাঁচ পুলিশ ক্লোজড! উদ্ধার করা মাদক আত্মসাৎ অভিযোগ, ওসিসহ পাঁচ পুলিশ ক্লোজড! বেনাপোল থানার এসআই পিন্টু লাল দাসকে বদলিতে সাধারন মানুষের মধ্যে ক্ষোভ জাগোবাঙ্গালী২৪.কম পত্রিকায় নির্বাহী-সম্পাদক পদে নিয়োগ পেলেন মোঃ আলী হোসেন বাচ্চু বেনাপোলে পুলিশের অভিযান ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার।
চবি ছাত্রলীগ সভাপতিকে বহিষ্কারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল

চবি ছাত্রলীগ সভাপতিকে বহিষ্কারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল

চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের বহিষ্কার দাবিতে ঝাড়ু মিছিল করেছে শাখা ছাত্রলীগের বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীরা। একই দাবিতে গতকাল অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের ডাক দেন তারা।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ এফ রহমান হলের সামনে থেকে ঝাড়ু মিছিল শুরু হয়ে সোহরাওয়ার্দী হলের কাছে গেলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়ালবডি আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বললে প্রায় এক ঘণ্টা পর মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা ফের এ এফ রহমান হলের সামনে গিয়ে অবস্থান নেয়।

আন্দোলনকারীরা ‘এক দফা এক দাবি, রুবেল তুই কবে যাবি’  ‘অছাত্র সভাপতি, মানি না মানবো না, অবৈধ প্রেসিডেন্ট, মানি না মানবো না’ স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় রুবেলের বিরুদ্ধে নিজের কর্মীদের উপর হামলায় মদদ, ছাত্রত্ববিহীনভাবে সভাপতি হওয়ার অভিযোগ করা হয়।

আন্দোলনকারী বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীরা বলেন, আমরা ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে নয়, ব্যক্তি রুবেলের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছি। সে একজন অছাত্র, তার ছাত্রত্ব অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। এই অছাত্র সভাপতি রুবেলের নির্দেশে গতকাল আমাদের তিন কর্মীকে শিবির স্টাইলে হাত-পায়ের রগ কেটে দিয়েছে তার পেটুয়া বাহিনী। আমরা তার পদত্যাগের আগ পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব। আমাদের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে অবরোধ চলবে।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান বলেন, আমরা ক্যাম্পাসের পরিবেশ শান্ত রাখার চেষ্টা করছি। নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে। আর বড় ধরনের কোনো আপত্তিকর ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য সবার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করছি।

তিনি বলেন, ছাত্র সংগঠনগুলো নিজেদের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র স্বার্থে এ ধরনের কাজগুলো করছে। যাদেরকে আটক করা হয়েছে, তাদের যাচাই-বাছাই চলছে। যারা অপরাধী তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো। আমরা আবাসিক হলগুলোতে একটাও অছাত্র রাখবো না। বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন অশৃঙ্খল পরিবেশ চাই না। ছাত্রদের বৃহত্তর স্বার্থে আমরা অচিরেই হার্ড লাইনে যাবো। কোনো অছাত্র, বহিরাগতকে আবাসিক হলে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না।

এদিকে, গতকাল বুধবার বিকেলে বিজয় গ্রুপের তিন কর্মীকে মারধরের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে ডাকা অনির্দিষ্টকালের অবরোধ চলছে। সারাদিন ক্যাম্পাসজুড়ে থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। সকাল থেকে শহর হতে বিশ্ববিদ্যালয়গামী কোনো ট্রেন ছেড়ে যায়নি।

এ বিষয়ে ষোলশহর স্টেশন মাস্টার তন্ময় চেীধুরী জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো আন্দোলন হলেই লোকোমাস্টারকে অপহরণ করা হয়। তাই নিরাপত্তাজনিত কারণে শহর থেকে কোনো ট্রেন ছেড়ে যায়নি।

উল্লেখ্য, বুধবার বিকেলে কথাকাটাকাটির জের ধরে সংঘর্ষে জড়ায় বিজয় ও সিএফসি গ্রুপ। এ সময় সিএফসি গ্রুপের এক কর্মীকে মারধর করে বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে সিএফসি গ্রুপের নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়াদী হলে গিয়ে বিজয় গ্রুপের তিন কর্মীকে মারধর ও কুপিয়ে জখম করে। এ ঘটনায় রাত নয়টার দিকে মারধরকারীদের শাস্তির দাবি ও সভাপতিকে বহিষ্কার দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের ঘোষণা দেয় বিজয় গ্রুপ। এর প্রেক্ষিতে রাত ১১টার দিকে দুটি হলে তল্লাশি চালিয়ে উভয় গ্রুপের ২০ নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, বিবাদমান সিএফসি গ্রুপ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও বিজয় গ্রুপ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন মোল্লার  অনুসারী এবং দুটি পক্ষই শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

 

লিডনিউজ

Comments are closed.




সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত-২০১৮-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Developed BY: AMS IT BD